আল কোরআনের ১২ তম পারার বর্ণনা আলোচনা করা হল। Hadithbd

প্রতিদিনের মত আজ Hadithbd তে আছি। আজকে তোলে ধরবো আল কোরআনের ১২ পারায় আল্লাহ্‌ কি কি বলেছেন?

অভাব দুর হইয়া গেলে  বা সম্পদশালী হইলে ইমানদারগণ আত্ম সম্মান না করিয়া আল্লাহ্‌র প্রশংসা করিতে হইবে। তার রহমত নিয়ামত স্বীকার করিতে হইবে।

যারা শুধু পার্থিব জীবন ও তার ভালমন্দ কামনা করে। আমি তাদের কে  তাদের দুনিয়ার প্ররিশমের ফল ধন সম্পদ শুধু দিতেই থাকি। আর আখেরাতকে তাদের জন্য দোযখ ভিন্ন আর কিছুই নাই। আল্লাহ্‌ দুনিয়াই নবী শুধু একজন পাঠান নাই। যুগে যুগে হাজার হাজার নবী রাসুল পাঠায়েছেন। পৃথিবীর জাত- বংশ মানব জাতির হেদায়াতের জন্যে। এটা কি সর্ব শক্তিমান ছাড়া আর কারো দ্বারা সম্ভব?

নুহের পুত্র তার নৌকায় না উঠে পাহাড়ে স্থান করিয়া নিল। আল্লাহ্‌র হকুমে পানি কমে গেল আর ঘটনার পরিসমাপ্তি ঘটিল। অস্তকরম পরায়ণ কাউকে আল্লাহ্‌ ক্ষমা করেন না।

তার পরের ঘটনা মিশরের বাদশা আজিজ্জ মিছরির বউ ও ইউসুফ নবীর তথ্য সমূহ, কুচক্রী নারি ও জোলেখার অসফল চক্রান্ত ইত্যাদি। আপনারা সকলেই ইহা জানেন তাই লিখলাম না।

দুনিয়ার শালিশ-বিচারে, কোর্ট কাচারিতে কর্ম ফলের কিছু শাস্তি অ সস্থি মানুষ প্রায়। কিন্তু কর্মফল দিবসে বিশবপ্রভুর চুলচেরা বিচারে কাউকেও ছাড়া হবে না। ভাল কাজের জন্য শান্তি। আর খারাপ কাজের জন্য শাস্তি ভোগ করিতে হইবে।

ইহাতে কোন সংদেহ নাই।