আল কোরানের সংক্ষিপ্ত ৮ম পারার শানে নুযূল আলোচনা করা হল। Hadithbd

আল্লাহ্‌ অনেক সময় মনে প্রাণে চাহিতেন যে কাফেররা সঠিক পথে ফিরিয়া আসুক।

কিন্তু তারা নানা প্রকার ভুয়া বিতর্কেই লিপ্ত থাকিত। তাহারা স্বীয় কৃতকর্মের জন্যে শাস্তি অবশ্যই পাইবে। তারা এত বাড়িয়া গিয়েছিল যে তারা  দাবি করত যে আল্লাহ্‌র নবীর উপর যে ওহী আসে তাহা  তাহাদের উপরও আসুক- আল্লাহ্‌ যাকে হেদাআয়াত করিতে ইচ্ছা করেন, আর যাকে বিপদে রাখার ইচ্ছা তাহার অন্তর কে সং কীর্ণ করিয়া রাখেন।যারা অবিশ্বাস করে তাদের জন্য রয়েছে দোযখ। তাহারা ঠিকই হাশরের দিনে তাহাদের মধ্যে নবী পাঠানো এবং কিতাব আসিয়াছিল তাহারা টা বিশ্বাস করিবে। মুশ্রেকদের খেল তামাসার কোন শেষ ছিল না। তারা উৎপাদিত শসষের অর্ধেক দেবতার জন্য ও অর্ধেক আল্লাহ্‌র জন্য রাখিত। দেবতার অংশ বেশি থাকলে দেবতার জন্যই রাখিত। আল্লাহ্‌র অংশ দানখ্যরাত করিত। আর দেবতার অংশ চাক্র বাকর দের মধ্যে বিতরন করিত।আল্লাহ তার সখের আদ্ম তৈরি করার পরে ইবলিশকে বলিলেন তাকে সেজদার করার জন্য, কিন্তু সে আগুনের তৈরি বলে মাটির তৈরি মানুষকে সেজদা করিল না। সে অভিশপ্ত হইল। তাহাঁকে বেহেশতের বাইরে রাখা হল। সে আল্লাহ্‌র কাছে কেয়ামত পর্যন্ত মানুষের ক্ষতি করার জন্যে অবকাশ চাহিল ও পাইল কিন্তু আল্লাহ্‌ বলিল বিতাড়িত শয়তান আমার খাছ বান্দাদের বিপথগামী করিতে পারিবে না।