খালি পেটে রসুন খাওয়ার উপকারিতা । health tips

সকালের নাস্তার আগে বা পরে খেতে পারেন। কেননা খাবার খাওয়ার ফলে শরীর এবং মুখের মধ্যে ব্যাকটেরিয়ার পরিমাণ বেড়ে যায়। তখন এই কুয়া রসুন অ্যান্টিবায়ুতিকের কাজ করে। যার ফলে ব্যাকটেরিয়া বাড়তে পারে না।

2.যক্ষ্মা প্রতিরোধঃ রসুন যক্ষ্মা প্রতিরোধ করে। ডেলি যদি এক কুয়া রসুন কাঁচা বা ভেজে নিয়ে খাওয়া যায়। তাহলে যক্ষ্মা রোগ থেকে রক্ষা পাওয়া যেতে পারে।

৩। বংক্রাইটিস বা আজমা প্রতিরোধেঃ ৪০ গ্রাম রসুন পানিতে ভিজিয়ে সিদ্দ করে নিন। সেটি একটি বোতলে রেখে দিন। আপনি আপনার বংক্রাইটিস এবং আজমা রোগ থাকে। তবে ঐ গরম পানির মধ্যে রসুন সিদ্দ পানি ২০ ফোটা দিয়ে খেতে পারেন। যদি খেতে অসুবিধা হয় তবে মেনথল মিশিয়ে খেতে পারেন।

৪। কোষ্ঠকাঠিন্য প্রতিরোধেঃ এই রোগের মহা ওষুধ রসুন। ফুটন্ত পানিতে বেশ কয়েক টি রসুন ফোটান। এর পর সেই বাস্প নাক দিয়ে টানুন। যতক্ষণ পর্যন্ত পানি ঠাণ্ডা না হয় তত ক্ষণ পর্যন্ত নাক দিয়ে তানতে থাকুন। ধীরে ধীরে এই রোগ ভাল হয়ে যাবে।

৫। বেথা প্রতিরোধেঃ রসুন খেলে শরীরের বেথা কমে যায়।হাতে সামান্য রসুন নিয়ে সেটা থেত করে বেথার জায়গায় লাগিয়ে দিন। বেথা কমে যাবে।

দাতের বেথা ,পোকা কামড়ালে রসুন লাগিয়ে দিন বেথা ভাল হয়ে যাবে।

৬। হার্ট ভাল রাখাতেঃ রসুন হাঁটের যেকোনো রোগ ভাল করতে সক্ষম। শরীরের রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রাখতে এবং এনার্জি বাড়াতে সক্ষম।

৭।ক্যানসার প্রতিরোধেঃ ক্যানসার রোগ প্রতিরোধ করতে রসুন সক্ষম।রসুন খাওয়ার ফলে ক্যানসার হতে পারেনা। রসুনে সালফাইড এন্ট্রি ক্যানসার হিসাবে কাজ করে।

health tips