রোগ প্রতি রোধ ক্ষমতা

শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর উপায়।

আমরা সবাই চাই আমার শরীরে যে কোন প্রকার রোগ বালাই না থাকে। কিন্তু কোন উপায় নাই। আপনার অজান্তেই আপনার শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দিন দিনই কমে যাচ্ছে। তাই এখনি আপনাকে সচেতন হতে হবে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য ভিবিন্ন বিজ্ঞানী ভিবিন্ন ভাবে গবেষণা চালিয়েছেন। এখন পর্যন্ত গবেষণা চলতেই আছে।

আকজে কিছু গবেসনার তথ্য প্রকাশ করলাম। নিচে ধাপে উল্লেখ করলাম।

১। দই, ঘোল, ছানা এই সব জাতিয় খাবার খেলে শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। এই সব খাবার গুলোতে ভিটামিন ডি থাকে। যখন এই ভিটামিন এর সংখা কমে তখন পাকস্থলীতে ক্যান্সারের ঝুকি বাড়ায়।

গবেষণায় আরও বলা হয়েছে, যাদের শরীরের গঠন ভালো তাদের শরীরের কোন ঘাটতি থাকবে না। তাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বেশি।

 শিশু জন্মের পর থেকে মায়ের বুকের ধুধ খাওয়ালে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে।

২। নিয়মিত ভিটামিন সি এবং বি জাতীয় খাবার খেতে হবে।

এই ভিটামিন দুটি খাবারের সাথে মিশে যায়। কিন্তু শরীরের জমা হয়ে থাকে না। তাই নিয়মিত এই ভিটামিন জাতীয় খাবার খেতে হবে।

এই ভিটামিন দুটি পানির সাথে মিশে গিয়ে প্রসাবের সাথে বেবিয়ে যায়।

তাই শরীরের নার্ভ নিয়ন্তন ঠিক রাখে। বিক্রিয়ার কারনে শরীরের ভিতর যে সেল ক্ষতি গরস্থ হচ্ছে। তা ক্ষতি পুরন করতে কাজ করে ভিটামিন সি।

ধুধ এবং কলিজার মধ্যে ভিটামিন বি থাকে। আর ফল, লেবু, আমলকী, কমলা,  পেয়ারাতে ভিটামিন সি থাকে।

তাই এই জাতীয় খাবার নিয়মিত খাওয়ার চেষ্টা করেন।

৩। অতিরিক্ত চা খাওয়া বাদ দিতে হবে। আপনি মনে করেন, দিনে ৫ তা চা খাচ্ছেন।তিন টা তেই চিনির পরিমান বেশি। তাহলে আপনার জন এটা ভয়াবহ অবস্থা।– ডাক্তার কল্লোল। তাই চা কম খাওয়ার চেষ্টা করেন।

৪। বাঙ্গাল মনে করে ভাত বেশি খেলেই শরীর সুস্থও এবং ভাল থাকে।

তাই অনেকেই ভাত বেশি খেয়ে থাকেন। ৬০ শতাংশ হতে হবে শর্করা।

৩০শতাংশ প্রোটিন এবং ৫ শতাংশ।

আমাদের দেশে শর্করা জাতীয় খাবার বেশি খাওয়া হচ্ছে কিন্তু প্রোটিন জাতীয় খাবার খুব কম খাওয়া হচ্ছে।

অতিরিক্ত শর্করা জাতীয় খাবার খেলে শরীরে চ্রবি জমা হয়।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য ভিবিন্ন ধরনের খাবার খতে হবে।

৫। নিয়মিত শারিরিক ব্যায়াম করতে হবে। শারীরিক পরিশম করলে শরীরের প্রতিটি অঙ্গ পতঙ্গ কাজ করে। শরীরের রক্ত চলাচল স্বাভাবিক থাকে। শরীরের কোষ গুলোতে শক্তি উৎপাদন করে।

তাই শারীরিক পরিশমের সাথে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে।

৬। রোগ প্রতিরোদ ক্ষমতা ভাল থাকলে ডেঙ্গু জ্বর থেকে আপনি ৯০% নিরাপদ থাকতে পারবেন। শরীরে কত টুকু জীবাণু প্রবেশ করছে এবং সে টি কত টুকু আক্রান্ত করার চেষ্টা করছে। এটাই হল গুরুত্ব পূর্ণ বিষয়।

মশার কামড়ে যে টুকু জীবাণু প্রবেশ করছে। তার চেয়ে যদি আপনার রোগ প্রতিরোগ বেশি থাকে।তাহলে মশা আপনার কিছই করতে পারবেনা।

তাই বলব রোগ প্রতিরোগ ক্ষমতা বাড়ান। মশা আপনার কিছুই করতে পারবেনা।