হাদিসের ইতিহাস। bangla hadith

হাদিস শব্দের অর্থ হল ইসলামের শেষ বানী এবং জীবন আচরণ।

হাদিস মানুষের কল্যাণের জন্য সংরক্ষণ করা হয়েছে।

নবী (সা:) যখন বেছে আছিলেন। তক্ষণ রাষ্ট্র এর ভিবিন্ন কাজ কর্ম লিখিতভাবে রাখা হত। ভিবিন্ন কাজ কলাপ লিখিত ভাবে প্রকাশ করা হত। অনেক সময় ইসলামের দাওয়াত ,চুক্তি সমাদন করা হত লিখিত ভাবে।

নবী (সাঃ) এর মারা যাওয়ার পরে ভিবিন্ন ভাবে হাদিস সংরক্ষণের প্রয়োজনীয়তা দেখা দেয়।

আবু বক্কর(রাঃ) এর আমলে কোরআন লিপিবধভাবে লিখিত হবার পর

হাদিস সংরক্ষণে কোন সমস্যা দেখা যাইনি বিঁধায়। হিজরি প্রথম শতাব্দী শেষ ভাগে সাহাবি এবং তাবীঈগণ প্রয়োজন অনুসারে কিছু হাদিস সংরক্ষণ করেন।

খলিফা উমাইয়া উমর ইবনে আবদুল আজিজ এবং মুসলিম বিশ্বের নেতারা হাদিস সংরক্ষণের জন্য একটি ফরমান জারি করেন। ফরমানে বলে দেওয়া হয় মহানবী (সাঃ) এর হাদিস ছাড়া কোন হাদিস সংরক্ষণ করবেন না। সবাইকে হাদিস শিক্ষা দেওয়ার আহ্বান জানান। এই আদেশ জারির পর মক্কা, মদিনা, সিরিয়া, ইরাক এবং অন্যান্য অঞ্চলে হাদিস সংগ্রহের কাজ শুরু হয়। প্রথম হাদিস সংগ্রহ করেন মুহাদিস ইমাম ইবনে শিহাব জহরী। কিন্তু তাঁর সংকলিত হাদিস গ্রন্থের সন্দদান পাওয়া যায়নি। তারপর আবার হাদিস সংগ্রহের কাজ করলেন ইমাম ইবনে জুরাইয়া মক্কায়, ইমাম মালিক মদিনায়, আবদুল্লাহ ইবনে আবদুল ওয়াহাব মিসরে, আব্দুর রাজ্জাক ইয়েমেনে, আব্দুলাহ ইবনে মুবারক খুরসানে, এবং আবু সুফিয়ান সাওরি হাম্মাত ইবনে সালমা বসরায় হাদিস সংরক্ষণের জন্য নিয়োগ হলেন। এরা কেবল দৈনন্দিন জীবনে প্রয়োজনীয় হাদিস গুলো সংরক্ষণ করে ছিলেন। কিন্তু তাঁরা বিষয় অনুসারে হাসিস

সংরক্ষণ করেনি। ওই যুগে লিখিত ভাবে সর্বপ্রথম এবং সর্ব প্রধান প্রামাণ্য হিসাবে ইমাম মালিকের মুয়াত্তা গ্রন্থটি প্রথম প্রকাশ করে। এটি পরে বিপুল জনপ্রিয় হয়ে উঠে ।তাঁর পর থেকে ইমাম

বুখারি, ইমাম মুসলিম, ইমাম আবু দাউদ, ইমাম তিরমিজি,ইমাম নাসাই এবং ইবনে মাজা হাদিস সংগ্রহ করেন। এদের নাম অনুসারে গ্রন্থের নাম রাখা হয়।

সহিহ বুখারি,মুস্লিম,সুনানে আবু দাউদ,জামিআত-তিরমিজি, সুনানে নাসাই এবং ইবনে মাজাহ।

এই ছয়টি কিতাবকেই সম্মিলিতভাবে সিহাহ সিতাহ বা বিশুদ হাদিস বলা হয়।

আব্বাসিয় যুগে হাসিস সংকলনের কাজ শেষ হয়।

কোন হাদিস বইতে কত গুলো হাদিস রয়েছে।

বখারি শরীফে  হাদিস আছে ৭৩৯৭ টি ১৯৪ হিজরিতে সংকলন করা হয়।

মুসলিম শরিফ হাদিস আছে ৪০০০ টি ২৬১ হিজরিতে সংকলন করা হয়।

তিরমিজি শরিফ হাদিস আছে ৩৮১২ টি ২৭৯ হিজরিতে সংকলন করা হয়।

সুসানে আবু দাউদ হাদিস আছে ৮৪০০ টি ২৭৫ হিজরিতে সংকলন করা হয়।

সুসানে ইবনে নাসাই হাদিস আছে ৫৭৬১ টি ৩০৩ হিজরিতে সংকলন করা হয়।

সুসানে ইবনে মাজাহ হাদিস  রয়েছে ৪৩৮৯ টি ২৭৩ হিজরিতে সংকলন করা হয়।

যেসব সাহাবী বেশি হাদিস সংগ্রহ করেছেন।

তাঁরা হলেন

হযরত আবু হুরাইরা (রাঃ) ৫৭ হিজরিতে ৭৮ বছর জীবন কাল ৫৩৭৪ টি হাদিস সংগ্রহ করেছেন।

আয়েশা সিদ্দিকা (রাঃ) ৫৮ হিজরিতে ৬৭ বছর জীবন কাল ২২১০ টি হাদিস সংকলন করেছেন।

আব্দুলাহ ইবনে আব্বাস (রাঃ) ৬৮ হিজরিতে ৭১ বছর জীবন কাল ১৬৬০ টি হাদিস সংকলন করেছেন।

হযরত আবদুল্লাহ ইবনে উমর(রাঃ) ৭০ হিজরিতে ৮৪ বছর জীবন কাল ১৬৩০ টি হাদিস বর্ণনা করেছেন।

হযরত জাবের ইবনে আব্দুল্লাহ (রাঃ) ৭৪ হিজরিতে ৯৪ বছর জীবন কাল

তিনি ১৫৪০ টি হাদিস বর্ণনা করেছেন।